আজ-  ,

basic-bank

সাপ্তাহিক ইনতিজার রেজি. ন. ডি-এ ১৭ ৬৮ এর একটি ওয়েব সাইট সংষ্করণ


সংবাদ শিরোনাম :
«» বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম কর্তৃক সফল ”এ” গ্রেড চেয়ারম্যান ও গোল্ড মেডেল” পদক ঘোষণা «» টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ছায়ানীড়ের ভাষা অনুষ্ঠিত «» বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি লীগ আহবায়ক কমিটি, টাঙ্গাইল জেলা শাখা। «» এ মানচিত্র আমার «» টাঙ্গাইলরে গোপালপুরে নলনি বাজারে ভয়াবহ অগ্নকিান্ড; ক্ষতি ২৫ লাখ টাকা «» শীতের আগমনী গান «» মৃতঃ ব্যক্তির স্থলাভিষিক্ত অন্যজন উপস্থিত হয়ে জমি বিক্রয় বিষয়টি সম্পূর্ন ভুল হয়েছে- ডাঃ স্বপ্না রাণী, সাব রেজিঃ, সখীপুর-টাঙ্গাইল «» ধুনটে চালকের মুখে গাম লাগিয়ে অটোভ্যান ছিনতাই «» বিপিএলের সময়ে কিছুটা পরিবর্তন «» মেসির জাদুরে জয় পেল বার্সেলোনা

ঘোষিত বাজেট বাস্তবায়নযোগ্য

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বর্তমান সরকারের দশম বাজেট এবং তাহার জীবনের দ্বাদশ বাজেট জাতীয় সংসদে উত্থাপন করিয়াছেন গতকাল বৃহস্পতিবার। ‘সমৃদ্ধ আগামী পথযাত্রায় বাংলাদেশ’ শিরোনামের প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যয় ধরা হইয়াছে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা।  ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মোট দেশজ উত্পাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির হার ধরা হইয়াছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। চলতি বছরের বাজেটে যাহা ছিল ৭ দশমিক ৪ শতাংশ। প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতির গড় হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশ, চলতি অর্থবছরের বাজেটে যাহা ৫ দশমিক ৪ শতাংশ রাখা হইয়াছে। দেশের ৪৭ বত্সরের ইতিহাসে ইহা সবচাইতে বড় বাজেট। বাজেটে ব্যয় মিটাইতে সরকারি অনুদানসহ আয়ের পরিমাণ ধরা হইয়াছে ৩ লক্ষ ৪৩ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। তন্মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) আয় ধরা হইয়াছে ২ লক্ষ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। মোট ঘাটতি ১ লক্ষ ২১ হাজার ২৪২ কোটি টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ ধরা হইয়াছে (এডিপি) ১ লক্ষ ৭৩ হাজার কোটি টাকা।

 

বাজেটে গ্রামীণ দরিদ্র ও প্রান্তিক দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য ১৩ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার কথা বলা হইয়াছে। মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পাইয়া ১৭৫২ মার্কিন ডলারে উন্নীত হইয়াছে বলিয়া উল্লেখ করিয়াছেন অর্থমন্ত্রী। শ্রমবাজারে প্রতি বছর ২০ লক্ষ লোক যুক্ত হইয়া থাকে বলিয়া বিভিন্ন ধরনের কার্য উপযোগী শ্রমশক্তি তৈরির উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। বস্তুত শ্রমশক্তির মান আন্তর্জাতিকীকরণের কোনো বিকল্প নাই। নির্বাচনী বছর হওয়ায় এবারের বাজেট বাস্তবায়ন তিনটি সরকারের মধ্য দিয়া হইবে বলিয়া আশা করা যায়। ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে নানামুখী পদক্ষেপের কথা বলা হইয়াছে। এইগুলি অব্যাহত রাখিতে হইবে। দারিদ্র্য ও চরম দারিদ্র্যের হার হ্রাস পাইয়া যথাক্রমে ২৪ দশমিক ৩ এবং ১২ দশমিক ৯ শতাংশে নামিয়া আসিয়াছে। ইহা নিঃসন্দেহে একটি অগ্রগতি। এদিকে বিদ্যুত্ উত্পাদন বৃদ্ধি পাইয়া ১৮ হাজার ৩৫৩ মেগাওয়াট হইয়াছে এবং বিদ্যুতের সিস্টেম লসও হ্রাস পাইয়াছে। দেশের অগ্রযাত্রাকে টেকসই করিতে শিক্ষার মান উন্নয়নের বিকল্প নাই—যাহাতে দেশের চাহিদা পূরণ করিয়া বিদেশের শ্রম বাজারেও মানসম্পন্ন মানব সম্পদ রপ্তানি করা যায়। উচ্চপর্যায়ে শিক্ষার মান উন্নয়ন করা জরুরি হইয়া পড়িয়াছে। আবার রপ্তানি পণ্য বহুমুখীকরণের জন্য পোশাক খাতের মান উন্নয়নের পাশাপাশি ঔষধ খাতের উপর গুরুত্বারোপ করা হইয়াছে। বাজেটে মেগা প্রকল্পগুলি বিশেষত পদ্মা সেতু এই বত্সরেই চালু হইবে বলিয়া আশাবাদ ব্যক্ত করা হইয়াছে।

 

করের পরিধি বৃদ্ধি করা হইয়াছে। তবে কর আদায়ে আরো দক্ষতা অর্জন এবং প্রায়োগিক কলাকৌশল নূতন করিয়া গ্রহণ করিতে হইবে। মানুষের উন্নয়নের লক্ষ্যে মানুষকেই উন্নয়নের সর্বাগ্রে রাখিতে হইবে। ব্যাংকিং খাতে যে সমস্ত সমস্যা রহিয়াছে তাহা দূর করিতে হইবে। নারী উন্নয়নে বাংলাদেশের অগ্রগতি প্রশংসনীয়। তবে কর্মসংস্থান অপ্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর বদলে প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোতে রূপান্তরের জন্য আর্থিক অন্তর্ভুক্তিমূলক কর্মকাণ্ডকে বেগবান করিতে হইবে। বস্তুত ঘোষিত বাজেটটি বাস্তবায়নযোগ্য এবং সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাজেটটি যাহাতে বাস্তবায়িত হয় সেই ব্যাপারে বিশেষ যত্নবান হইতে হইবে। এদিকে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিশেষ সাফল্য অর্জিত হইলেও যাহারা বিভিন্ন পর্যায়ে সেবা প্রদান করিতেছে তাহারা সেবা প্রদানের নামে গ্রাহকদের হয়রানি করিতেছে কি না সেই ব্যাপারে তদারকির ব্যবস্থা থাকিতে হইবে। এইবারের বাজেটে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাশাপাশি বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশনের রূপরেখা দিয়াছেন অর্থমন্ত্রী— যাহা বাস্তবায়ন হইলে সমাজের উপকার হইবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered By : Intizar24 Developed By : BDiTZone