আজ-  ,

basic-bank

সাপ্তাহিক ইনতিজার রেজি. ন. ডি-এ ১৭ ৬৮ এর একটি ওয়েব সাইট সংষ্করণ


সংবাদ শিরোনাম :
«» বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম কর্তৃক সফল ”এ” গ্রেড চেয়ারম্যান ও গোল্ড মেডেল” পদক ঘোষণা «» টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ছায়ানীড়ের ভাষা অনুষ্ঠিত «» বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি লীগ আহবায়ক কমিটি, টাঙ্গাইল জেলা শাখা। «» এ মানচিত্র আমার «» টাঙ্গাইলরে গোপালপুরে নলনি বাজারে ভয়াবহ অগ্নকিান্ড; ক্ষতি ২৫ লাখ টাকা «» শীতের আগমনী গান «» মৃতঃ ব্যক্তির স্থলাভিষিক্ত অন্যজন উপস্থিত হয়ে জমি বিক্রয় বিষয়টি সম্পূর্ন ভুল হয়েছে- ডাঃ স্বপ্না রাণী, সাব রেজিঃ, সখীপুর-টাঙ্গাইল «» ধুনটে চালকের মুখে গাম লাগিয়ে অটোভ্যান ছিনতাই «» বিপিএলের সময়ে কিছুটা পরিবর্তন «» মেসির জাদুরে জয় পেল বার্সেলোনা

খুলনাবাসীর দাবি ৩৬, প্রধানমন্ত্রী দেবেন ৯৯

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার খুলনা যাচ্ছেন।

৩ মার্চ, শনিবার তিনি খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে জনসভায় বক্তব্য দিবেন।

প্রধানমন্ত্রীর এ সফরকে কেন্দ্র করে খুলনার প্রায় সব শ্রেণির মানুষ ইতোমধ্যে তাদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া তুলে ধরেছেন। ‘খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি’ ২১ দফা দাবি তুলে ধরেছেন।

এ সব দাবির মধ্যে রয়েছে খুলনায় পাইপলাইনে দ্রুত গ্যাস সরবরাহ, খানজাহান আলী বিমানবন্দর নির্মাণ, খুলনা-যশোর-ঢাকা মহাসড়ক উন্নয়ন, মোংলা বন্দরের আধুনিকায়ন, বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স, আন্তর্জাতিক মানের পাবলিক হল নির্মাণ, খুলনার আলিয়া মাদ্রাসাসহ কলেজ ও স্কুল সরকারিকরণ, আবু নাসের হাসপাতাল পূর্ণাঙ্গভাবে চালু, মেরিন একাডেমি, পূর্ণাঙ্গ টেলিভিশন কেন্দ্র স্থাপন, আধুনিক কাগজকল, বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও আইটি পার্ক নির্মাণ প্রভৃতি।

এ দিকে প্রধানমন্ত্রীর গণমাধ্যম শাখা সূত্রে জানা গেছে, ৩ মার্চ খুলনা সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিন তিনি ৯৯টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন-ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এর মধ্যে ৫২টি নতুন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর উন্মোচন ও শেষ হওয়া ৪৭টি প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

খুলনা জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির ২১ দফাসহ এলাকাবাসীর বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ৩৬ দফা দাবি ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে জরুরি ফ্যাক্সবার্তা পাঠানো হয়েছে।

ওই বার্তায় বৃহত্তম খুলনায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণ, গ্যাস সরবরাহ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনসহ ৩৬টি প্রকল্প বাস্তবায়নের গুরুত্ব তুলে ধরা হয়েছে বলে প্রিয়.কমকে নিশ্চিত করেছেন  নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা প্রশাসনের কয়েকজন কর্মকর্তা।

নগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রিয়.কমকে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী খুলনার উন্নয়নের ব্যাপারে যথেষ্ট আন্তরিক। আধুনিক রেলস্টেশন, খুলনা-মোংলা রেললাইন নির্মাণ, শিল্পকলা একাডেমি, মোংলা বন্দরের নাব্যতা রক্ষায় খননকাজ অব্যাহত রয়েছে। ইপিজেড, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, কুয়েট, কেডিএকে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তবে এ অঞ্চলের উন্নয়নের ক্ষেত্রে আরও অনেক দাবি রয়েছে। আমরা সেইসব গুরুত্বপূর্ণ দাবির ওপর জোর দিয়েছি। আশা করছি তা বাস্তবায়ন হবে।’

নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফর ঘিরে বর্ণিল রূপে সেজেছে খুলনা। রঙ-বেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন, তোরণের পাশাপাশি চোখ-ধাঁধানো আলোকসজ্জায় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে নগরীতে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনে যে সাজে সেজেছে খুলনা এবং নেতাকর্মীদের মধ্যে যে উচ্ছ্বাস বইছে তা অব্যাহত থাকবে।’

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যখন কোনো এলাকা সফর করেন, তখন সেই এলাকার নেতা-কর্মীদের মধ্যে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। এইবারও তা হবে। তবে প্রধানমন্ত্রীর এইবারের আগমনে খুলনাবাসী নতুন চমক পাবে।’

খুলনা বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনপ্রিয়.কমকে বলেন, ‘আমরা বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা শেখ হেলালের সমন্বয়ে কাজ করছি। আশা করছি এই সমাবেশটি খুলনার স্মরণকালের সেরা জনসভা হবে।’

জনসভায় প্রধানমন্ত্রী কী মেসেজ দেবেন? এই প্রশ্নে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে খুলনার মানুষের মাঝে উচ্ছ্বাস তৈরি হবে। এখানকার নেতৃবৃন্দের মাঝে সাংগঠনিক তৎপরতা বৃদ্ধি পাবে। এটি আমাদের নতুন করে কোনো কর্মসূচি নয়। প্রধানমন্ত্রী দেশব্যাপী যে সফর করছেন এটি তারই অংশ। যেখানেই তিনি যাচ্ছেন সেখানেই মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন। জনগণ হাত উঠিয়ে আওয়ামী লীগ তথা চৌদ্দ দলকে পুনরায় ক্ষমতায় আনার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।’

আবু সাঈদ আলম মাহমুদ স্বপন বলেন, ‘আমরা দেশব্যাপী প্রতিটি থানায়-মহল্লায় মানুষদের বোঝানোর চেষ্টা করছি। আমাদের কার্যক্রম তুলে ধরছি। মানুষের মধ্যে একধরনের প্রাণবন্ত মনোভাব লক্ষ্য করছি। আশা করছি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে পুনরায় চৌদ্দ দল ক্ষমতায় আসবে।’

২০১৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর খুলনা শিপইয়ার্ডে দুটি বৃহৎ যুদ্ধজাহাজ বা লার্জ পেট্রোল ক্র্যাফটের (এলপিসি) নির্মাণকাজ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করতে খুলনা যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে ২২ ফেব্রুয়ারি রাজশাহী, ৩০ জানুয়ারি সিলেট, ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশাল সফর করেছেন প্রধানমন্ত্রী। পর্যায়ক্রমে প্রধানমন্ত্রী দেশের অন্যান্য বিভাগেও যাবেন বলে কথা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered By : Intizar24 Developed By : BDiTZone