আজ-  ,

basic-bank

সাপ্তাহিক ইনতিজার রেজি. ন. ডি-এ ১৭ ৬৮ এর একটি ওয়েব সাইট সংষ্করণ


সংবাদ শিরোনাম :
«» বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম কর্তৃক সফল ”এ” গ্রেড চেয়ারম্যান ও গোল্ড মেডেল” পদক ঘোষণা «» টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ছায়ানীড়ের ভাষা অনুষ্ঠিত «» বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি লীগ আহবায়ক কমিটি, টাঙ্গাইল জেলা শাখা। «» এ মানচিত্র আমার «» টাঙ্গাইলরে গোপালপুরে নলনি বাজারে ভয়াবহ অগ্নকিান্ড; ক্ষতি ২৫ লাখ টাকা «» শীতের আগমনী গান «» মৃতঃ ব্যক্তির স্থলাভিষিক্ত অন্যজন উপস্থিত হয়ে জমি বিক্রয় বিষয়টি সম্পূর্ন ভুল হয়েছে- ডাঃ স্বপ্না রাণী, সাব রেজিঃ, সখীপুর-টাঙ্গাইল «» ধুনটে চালকের মুখে গাম লাগিয়ে অটোভ্যান ছিনতাই «» বিপিএলের সময়ে কিছুটা পরিবর্তন «» মেসির জাদুরে জয় পেল বার্সেলোনা

জনপ্রিয় তরুন সাংসদ আলহাজ্ব হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী এর সহযোগিতায় ৯ম ও ১০ শ্রেণীর স্বীকৃতি পেল শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয়, বাংড়া।

২৩ অক্টোবর ২০১৯ বুধবার গণভবনে নূতন করে এমপিওর তালিকাভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম ঘোষণা উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ২,৭৩০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্তির ঘোষণা দিয়ে এর নীতিমালা যথাযথ মেনে চলার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আপনারা নীতিমালা অনুযায়ী সব নির্দেশনা পূর্ণ করতে পেরেছেন বলে এমপিও ভুক্ত হয়েছেন। কাজেই এটা ধরে রাখতে হবে।’ তিনি আরও বলেন,‘ কেউ যদি এটা ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়, সঙ্গে সঙ্গে তার এমপিও ভুক্তি বাতিল হবে। কারণ এমপিও ভুক্তি হয়ে গেছে, বেতন তো পাবই, ক্লাস করানোর দরকার কী, পড়ানোর দরকার কী- এ চিন্তা করলে কিন্তু চলবে না। বাসস।

২,৭৩০ এমপিও ভুক্তি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪৩৯টি নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৯৯৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৯৩টি কলেজ, ৫৬টি ডিগ্রী কলেজ, ৫৫৭টি মাদ্রাসা ও ৫২২টি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।‘শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচীব মোঃ সোহরাব হোসেন অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত উপজেলায় মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাত্র ৪টি এমপিও ভুক্ত হয়েছে। তার একটি হ’ল শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয়, বাংড়া। অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হ’ল যথাক্রমে আনোয়ারা হাশেম মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়, নগরবাড়ী, ফেরদৌস আলম ফিরোজ উচ্চ বিদ্যালয়, গান্ধিনা, ও হাজী নবাব আলী উচ্চ বিদ্যালয়, ভুক্তা।

শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল হাকিম, বি এস সি, এম এড বলেন, ”বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক শিক্ষিকার অক্লান্ত পরিশ্রমে সকল নীতিমালা পূরণ, আমার স্ত্রী’র গয়না ও পৈতৃক সম্পক্তি বিক্রয়ের টাকা খরচ করে দীর্ঘদিনের চেষ্ঠায় এ অর্জন। বিশেষ করে কালিহাতীর সাংসদ আলহাজ্ব হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীর সার্বিক সহযোগীতায় এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্বীকৃতি পেল এবং এমপিও ভুক্তি হ’ল।”

এখানে উল্লেখ্য যে, আলহাজ্ব হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী টাঙ্গাইল – ৪ কালিহাতী আসানে উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়ে ৬ মাসের মধ্যে কালিহাতী উপজেলাধীন প্রতিটি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামে যে উন্নয়নের ছোঁয়া পেয়েছে তা স্বাধীনতার পর তা কেহ দেখাতে পারে নাই। রাস্তাঘাট, মসজিদ মন্দির, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন ২টি সহ মানুয়ের ভাগ্য উন্নয়ন। বর্তমানেও মা মাটি মানুষের জনপ্রিয় তরুন সাংসদ হিসেবে আলহাজ্ব হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রধান শিক্ষকের ব্যক্তিগত অর্থ ত্যাগ সম্পর্কে বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দের নিকট জানতে চাইলে এর সত্যতা পাওয়া যায়। এমনকি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি সৈয়দা সালমা ডন এর নিকট মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,” গয়না ও পৈতৃক সম্পক্তি বিক্রয়ের কথা আমি শুনেছি। তাছাড়া আমি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান থাকাকালীন বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয় রাখার অগ্রনী ভ’মিকাসহ তা বাস্তবায়ন করেছি।”

প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল হাকিম ১৯৯২ সালে অত্র বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেন, ২০০২ সালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও ২০০৩ সালে প্রধান শিক্ষকের পদে অধিষ্ঠিত হন। প্রধান শিক্ষক হওয়ার পর থেকেই বিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেন। একদিকে নূতন স্কুল তাই ছাত্রছাত্রী সংগ্রহ সহ প্রতিষ্ঠান ভবনের উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে সকল শিক্ষক, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগীতায়।

শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয়, বাংড়া ১৯৮২ সালে মরহুম সৈয়দ জাহারুল আলম মাসুম এর নেতৃত্বে বাংড়া তরুন মজলিস ক্লাবের যুবকদের দ্বারা স্থাপিত। তৎকালীন যুবা যেমন নোমান, লাভলূ, সালেক, বায়েজিদ, বাবু, ফেরদৌস, রবিন, আকরাম, সবুজ (মহসীন), হাসিব,বুলবুল, জীবন ও আরও অনেকে ….

One response to “জনপ্রিয় তরুন সাংসদ আলহাজ্ব হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী এর সহযোগিতায় ৯ম ও ১০ শ্রেণীর স্বীকৃতি পেল শহীদ আবুল কালাম আজাদ উচ্চ বিদ্যালয়, বাংড়া।”

  1. Syed Mohsin Habib says:

    সংবাদটি আমার লেখা (সৈয়দ মহসীন হাবীব)। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা লগ্নে শুধু যুবা নয়, আবাল বৃদ্ধ বনিতা যেমনঃ শাহীন, রজত, শামীম, কবির, লোকমান, প্রবীর, মন,মৃদুল, তরুনসহ আরও অনেকে শারীরিক মানষিক ও অর্থনৈতিক সাপোর্ট করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered By : Intizar24 Developed By : BDiTZone